শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
শিরোনাম:
অপহরন ও ধর্ষন মামলায় ধর্ষকের ৪৬ বছরের কারাদন্ড গাইবান্ধায় মাদক মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড, হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্টের সুবিধা নিতে হলে শরীরচর্চার বিকল্প নেই – ডেপুটি স্পীকার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল নারীদের ক্রীড়া ও ঐতিহ্যবাহী তীর ছোড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক উৎসব গাইবান্ধা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ সাদুল্লাপুরে ব্যবসায়ী জ্যোতিশ চন্দ্র রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ কুড়িগ্রামে মহিষের গাড়ীতে বিয়ে আত্রাইয়ের মনিয়ারী ইউনিয়ন আ”লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ দুই মাদক ব্যবসায়ি আটক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা, প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

চিকিৎসাধীন অবস্থায় কক্সবাজারের যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি / ১০০ বার পঠিত
প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ৪ নভেম্বর, ২০২২, ৫:৫৬ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধকালে মহেশখালী থানার শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান কক্সবাজার মহেশখালীর মাওলানা জকরিয়া সিকদার মারা গেছেন। তিনি যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুন্যালের মামলায় আত্মগোপনে ছিলেন।

শুক্রবার (৪ নভেম্বর) চট্টগ্রাম ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান বলে পারিবারিক সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো প্রায় ১০০ বছর।

যুদ্ধাপরাধী মৌলভী জকারিয়া সিকদার মহেশখালী পৌরসভার মেয়র মুকছুদ মিয়ার বাবা তালিকাভুক্ত আরেক যুদ্ধাপরাধী হাসেম সিকদারের ছোট ভাই।

সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ২০১৫ সালের ২২ মে মাওলানা জকরিয়া সিকদারসহ ১৬ যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিল ট্রাইব্যুনাল। পরে এই মামলায় ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের মধ্যে ৩ আসামি মৌলভী শামসুদ্দোহা, জিনাত আলী ও সাবেক এমপি মোহাম্মদ আবদুর রশিদ মারা যান।

অন্যদিকে শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান মাওলানা জকরিয়া সিকদারসহ বাকি ১২ জন পলাতক ছিলেন। একাত্তরে হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, ধর্মান্তকরণসহ ১৩টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ ছিলো তাদের বিরুদ্ধে। প্রধান যুদ্ধাপরাধী হিসেবে মাওলানা জকরিয়াকে গ্রেপ্তারে নানাভাবে তৎপরতা চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। কিন্তু রহস্যজনক কারণে তাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে মুক্তিযোদ্ধাদের অভিযোগ ছিলো পরিবারের সদস্য প্রভাবশালী এক নেতার হস্তক্ষেপে আত্মগোপনে থাকেন তিনি।


এ জাতীয় আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর