শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
শিরোনাম:
অপহরন ও ধর্ষন মামলায় ধর্ষকের ৪৬ বছরের কারাদন্ড গাইবান্ধায় মাদক মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড, হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্টের সুবিধা নিতে হলে শরীরচর্চার বিকল্প নেই – ডেপুটি স্পীকার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল নারীদের ক্রীড়া ও ঐতিহ্যবাহী তীর ছোড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক উৎসব গাইবান্ধা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ সাদুল্লাপুরে ব্যবসায়ী জ্যোতিশ চন্দ্র রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ কুড়িগ্রামে মহিষের গাড়ীতে বিয়ে আত্রাইয়ের মনিয়ারী ইউনিয়ন আ”লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ দুই মাদক ব্যবসায়ি আটক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা, প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্ত হবে অজ্ঞাত পরিচয় দাফন করা লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৯০ বার পঠিত
প্রকাশের সময়: রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ১:০০ পূর্বাহ্ন

বরগুনা প্রতিনিধি : ঝালকাঠিতে লঞ্চ দুর্ঘটনায় নিহত অজ্ঞাত পরিচয় ২৩টি মরদেহ দাফন করা হয়েছে। নিহতের পরিচয় না পাওয়া গেলেও তাদের নমুনা সংরক্ষণ করেছে ঝালকাঠী স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বজনরা লাশ না পাওয়ার অভিযোগ দিলে সেই অনুযায়ী তাদেরও নমুনা নিয়ে সংরক্ষিত নমুনার ডিএনএ পরীক্ষা করে লাশ শনাক্ত করা হবে বলে জানিয়েয়েছে বরগুনা জেলা প্রশাসন। এদিকে বরগুনা জেলা প্রশাসনের কাছে আসা তথ্য অনুযায়ী বরগুনার এখনো ১৬জন নিখোঁজ রয়েছে বলে জানিয়েছে স্বজনরা।

লাশ দাফনের সময় আসা এক স্বজন নান্না হাওলাদার বলেন, আমার বোন সেদিন ঢাকা থেকে বরগুনা আসতে ছিলো। অগ্নিকান্ডের ঘটনার পর থেকে আমার বোনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এখানে যে লাশ গুলো রয়েছে সেগুলোর মধ্যে আমার বোন আছে কিনা তাও বুঝতে পারছি না। লাশগুলো এমনভাবে পুড়ে গেছে যে দেখে বোঝার কোন উপায় নেই।

আরেক স্বজন কনু হাওলাদার বলেন, ঝালকাঠি, বরিশাল, বরগুনার সকল হাসপাতালে খুঁজেছি কিন্তু কোথাও আমার ছেলে, বউ ও নাতীকে খুঁজে পেলাম না। বরগুনায় যে লাশ রয়েছে তাও সবগুলো ভালো করে খুঁজে দেখলাম কিন্তু বুঝে উঠতে পারছি না কোন আমার আদরের ধনের লাশ। নাকি এখনো আমার ছেলেন কোন সন্ধান পাওয়াই যায়নি। মুই কি হরমু কিছু কইতে পারি না আপনারা আমার ছেলেরে আইন্না দেন।

এবিষয়ে ঝালকাঠি সিভিল সার্জন রতন কুমার ঢালী বলেন, লাশ গুলো উদ্ধার করে বরগুনা জেলা প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করার আগেই আমরা এখানে উদ্ধারকৃত ৩৭টি লাশের নমুনা সংগ্রহ করে রেখেছি। যে কোন আইনগত প্রক্রিয়া কিংবা ডিএনএ পরীক্ষার জন্যই মূলত এই নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা আজকে ২৩টি অজ্ঞাত পরিচয় লাশ দাফন করেছি বরগুনার পোটকাখালী গণকবরে। আমাদের বরগুনায় লাশ সংরক্ষনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় লাশ গুলো ধর্মীয় নিয়ম নীতি মেনে দাফন করা হয়েছে। তবে স্বজনদের হতাশ হবার কিছু নেই আমরা প্রতিটি লাশে একটি ক্রমিক নম্বর ব্যবহার করেছি এবং সেই অনুযায়ী ঝালকাঠি স্বাস্থ্য বিভাগ সকল লাশ গুলোর নমুনা সংগ্রহ করে রেখেছে। কোন স্বজন যদি তার নিখোঁজ প্রিয়জনদের খুজে না পায় তবে আমরা তারও নমুনা সংগ্রহ করে দাফনকৃত লাশের নমুনা মিলিয়ে লাশগুলো শনাক্ত করবো।


এ জাতীয় আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর