সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
শিরোনাম:
ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্টের সুবিধা নিতে হলে শরীরচর্চার বিকল্প নেই – ডেপুটি স্পীকার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল নারীদের ক্রীড়া ও ঐতিহ্যবাহী তীর ছোড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক উৎসব গাইবান্ধা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ সাদুল্লাপুরে ব্যবসায়ী জ্যোতিশ চন্দ্র রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ কুড়িগ্রামে মহিষের গাড়ীতে বিয়ে আত্রাইয়ের মনিয়ারী ইউনিয়ন আ”লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ দুই মাদক ব্যবসায়ি আটক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা, প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির বিশেষ সভা গাইবান্ধার তুলশিঘাটে বাস চাপায় নানি-নাতনি নিহত

সাঘাটায় মায়ের ছুরিকাঘাতে মেয়ের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৮৭ বার পঠিত
প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ১১:১০ পূর্বাহ্ন

সাঘাটা প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সাঘাটায় মায়ের ছুরিকাঘাতে আতিকা সুলতানা সাদিয়া(১৭) নামে এক কলেজছাত্রী নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে সাঘাটা উপজেলার ভরতখালী ইউনিয়নের দক্ষিন উল্যা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আতিকা সুলতানা উপজেলার ভরতখালী ইউনিয়নের দক্ষিন উল্লা গ্রামের কারী আমিনুল ইসলামের মেয়ে। এ ঘটনায় মা হামিদা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আতিকা সুলতানা স্থানীয় উদয়ন ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিল। তার সাথে একই এলাকার এক ছাত্রের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি পারিবারিকভাবে মেনে নিতে পারেনি আতিকার পরিবার। শুক্রবার বিকেলে এ বিষয় নিয়ে আতিকার সঙ্গে মা হামিদা বেগমের কথাকাটাকাটি শুরু হয়। কথাকাটাকাটি-বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে মা হামিদা বেগম ধারালো ছুরি দিয়ে আতিকার গলায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।
পরে সাদিয়ার বাবা আমিনুল ইসলাম (৪১) বাদি হয়ে সাদিয়ার মা হামিদা বেগম এবং বড় ছেলে তানজিল আহম্মেদ (২১) কে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আজ শনিবার সকালে হামিদা বেগমকে পুলিশ জেল হাজতে পাঠায়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই নয়ন কুমার সাহা জানান, প্রেম ঘটিত কারণে সাদিয়াকে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে স্থানীয় লোকজন এবং নিহত সাদিয়ার বাবার তথ্যের ভিত্তিতে সাদিয়ার মা হামিদা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে, ভাই তানজিল আহম্মেদ পলাতক রয়েছে।
সাঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল হোসেন বলেন, এই ঘটনায় মা হামিদা বেগমকে জিঞ্জাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিটি জব্দ করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। আতিকার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্ত শেষে আজ দুপুরে আতিকার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


এ জাতীয় আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর