আজ ৫ কার্তিক, ১৪২৭, ২১ অক্টোবর, ২০২০

বিএডিসি বীজ ও গাইবান্ধা সার ডিলার এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আসন্ন ২০২০-২০২১ বোরো মৌসুমের বীজ বিপণন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ

স্টাফ রিপোর্টারঃ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের আওতাধীন ২০২০-২০২১ বিতরণ বর্ষের বোরো মৌসুমের বীজ বিপণন কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি। বৃহস্পতিবার বিএডিসি বীজ ও গাইবান্ধা সার ডিলার এসোসিয়েশন জেলা শাখা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান অতিথি হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনিকে সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা এবং এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এই স্মারকলিপিটি পাঠ করে শোনানোর পর এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে হস্তান্তর করেন বিএসডিসি বীজ ও সার ডিলার এসোসিশেয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আওলাদ হোসেন রিটু। স্মারকলিপিতে বিএডিসি বীজ ও সার ডিলারদের মাধ্যমে গাইবান্ধা জেলাসহ রংপুর অঞ্চলের কুড়িগ্রাম, নীলফামারী ও লালমনিরহাট জেলার বিএডিসি ও সরকারী আমদানীকৃত সকল নন-ইউরিয়া সার সরবরাহ ও বিভিন্ন মৌসুমে নতুন উদ্ভাবিত জাতের উচ্চ ফলনশীল ও হাইব্রিড বীজের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত বীজ সরবরাহের ব্যবস্থা করাসহ বিএডিসি বীজ আলুর হিমাগার স্থাপনের দাবি জানানো হয়।


অনুষ্ঠানে ডিলারদের পক্ষ থেকে সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া সুফলা বীজ ভান্ডারের স্বত্ত্বাধিকারী ডিলার অরুপ রতন দেবের পে-অর্ডার গ্রহণের মাধ্যমে বীজ বিতরণ এবং কৃষক পরিবারের সন্তান কৃষক তানজিমুল ইসলাম জনির কাছে বীজ বিক্রয় করে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি হুইপ।
বিএডিসি বীজ ও সার ডিলার এসোসিয়েশন গাইবান্ধা শাখার সভাপতি মো. তাজমিনুর রহমান কল্লোলের সভাপতিত্বে বিএডিসি বীজ ও সার বিপণন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি বীজ বিপণন রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আসাদুজ্জামান খান, যুগ্ম পরিচালক কৃষিবিদ মোফাজ্জল হোসেন, গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মাসুদুর রহমান, গাইবান্ধা বিএডিসি নির্বাহী পরিচালক চিত্তরঞ্জন রায়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হুইপ বলেন, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বর্তমান সরকারকে কৃষি বান্ধব সরকার হিসেবে গড়ে তুলে কৃষকদের জীবন জীবিকার উন্নয়ন এবং কৃষির উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে যাচ্ছেন। এ কারণেই আজ দেশ খাদ্য স্বয়ং সম্পন্ন অর্জন করেছে এবং কৃষকেরও ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর