আজ ২ আশ্বিন, ১৪২৮, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

পুঠিয়ায় শ্লীলতাহানির অভিযোগ ঢাকতে ছিনতাইয়ের নাটক, অভিযুক্ত যুবক গ্রেফতার

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ গৃহবধুকে বাড়িতে একা পেয়ে তাকে জাপটে ধরে বস্ত্রহরনের চেষ্টা করে লম্পট সুজন আলী (২৮)। এসময় গৃহবধুর আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে রক্ষা করে লম্পট সুজন আলীকে গণধোলাই দিয়ে ছেড়ে দেয়। সেখান থেকে পালিয়ে এসে লম্পট সুজন আলী শ্লীলতাহানীর অভিযোগ থেকে বাঁচতে ছিনতাইয়ের নাটক সাজিয়ে ওই গৃহবধুর স্বামীকে আসামী করে থানায় ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ করেন। তবে অভিযোগের তদন্তে গিয়ে উল্টো তাদের করা শ্লীলতাহানির অভিযোগে সুজন আলীকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।   

ঘটনাটি ঘটেছে গত (১১ ফেব্রুয়ারী) মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার জিউপাড়া ইউনিয়নের বিলমাড়িয়া গ্রামে। একইদিন রাতে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে । সুজন আলীকে শ্লীলতাহানির  মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

লম্পট সুজন আলী (২৮) ওই গ্রামের আজিজ আলীর ছেলে এছাড়াও ভুক্তভোগী গৃহবধুও একই গ্রামের জনৈক ব্যক্তির স্ত্রী। সুজন আলী দীর্ঘদিন ধরেই ওই গৃহবধুকে উত্যক্ত করে আসছিলো। তবে ঘটনার দিন বাড়িতে একা পেয়ে তাকে জাপটে ধরে বস্ত্রহরণের চেষ্টা করে। তার বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরও করেছেন।

ভুক্তভোগী নারী জানান, একই গ্রামে বাড়ি হওয়ায় লম্পট সুজন দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্নভাবে তাকে উত্যাক্ত করে আসছিলো। ঘটনার দিন তার স্বামী কাজে যায় এসময় বাড়িতে কেও ছিলোনা। এই সুযোগে সুজন অনধিকার ভাবে তাদের বাড়িতে প্রবেশ করে আচমকা তাকে জাপটে ধরে তার বস্ত্রহরণের চেষ্টা করে। সে চিৎকার দিয়ে উঠলে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করে। এসময় সুজনকে তারা আটক করে মারধর করে ছেড়ে দিয়েছে বলেও জানান ভুক্তভোগী নারী।

থানা পুলিশ সুত্র জানায়, সুজন আলী থানায় এসে ওই গৃহবধুর স্বামীর বিরুদ্ধে তাকে মারধর করে ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা ছিন্তাইয়ের অভিযোগ দিয়ে যান। অন্যদিকে ভুক্তভোগী গৃহবধুও সুজনের বিরুদ্ধে থানায় শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেন। দুটি অভিযোগেরই তদন্ত করেছেন থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম।

তিনি জানান, গৃহবধুর শ্লীলতাহানির ঘটনা ধামাচাপা দিতেই সুজন ছিন্তাইয়ের নাটক সাজিয়ে তার বিরুদ্ধে ১ লক্ষ ৮ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ করেন। অভিযোগের তদন্তে গিয়ে তার ছিনতাই হওয়া টাকার উৎস সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি একের পর এক মিথ্যা কথা বলেন। এক পর্যায়ে সে ছিনতাই  নাটকের অবসান ঘটিয়ে নারীর শ্লীলতাহানির কথা স্বীকার করেছেন। পরে তাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়।

পুঠিয়া থানার অতিরিক্ত ওসির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হাসমত আলী জানান, এক নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে তাকে গ্রেফতারের পর বুধবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর